চলুন জেনে নেই বিশ্বসেরা ১০ এয়ারলাইন্স সম্পর্কে

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৭ অক্টোবর ২০১৮ , ০৫:০৬ পিএম
চলুন জেনে নেই বিশ্বসেরা ১০ এয়ারলাইন্স সম্পর্কে

সম্প্রতি চালু হয়েছে বিশ্বের দীর্ঘতম নন স্টপ ফ্লাইট। আর এরই মধ্যে ২০১৮ সালে বিশ্বসেরা ১০ এয়ারলাইন্সের নাম ঘোষণা করেছে যুক্তরাজ্য ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান স্কাইট্র্যাক্স। ২০১৭ সালের আগস্ট থেকে ২০১৮ সালের মে পর্যন্ত ৩৩৫টি এয়ারলাইন্সের ওপর অনলাইনে জরিপ চালিয়ে বিজয়ীদের তালিকা চূড়ান্ত হয়েছে। চলুন তবে জেনে নেই ২০১৮ সালের সেরা ১০ এয়ারলাইন্স সম্পর্কে:

সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্স

বিশ্বের দীর্ঘতম ফ্লাইট পরিচালনা করে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্স এবার প্রথম হয়েছে। গত বছর স্কাইট্রাক্সের তালিকায় দুই নম্বরে ছিল এশিয়ার অন্যতম বৃহৎ এই এয়ারলাইন্স প্রতিষ্ঠানটি। সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্সের বিমান সিঙ্গাপুরে এর প্রধানকেন্দ্র হতে ৬টি মহাদেশের ৩২ টি দেশের ৬২ টি গন্তব্যস্থলে নিয়মিত যাতায়াত করে থাকে। বাংলাদেশ থেকেও ফ্লাইট পরিচালনা করে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্স।

কাতার এয়ারওয়েজ

কাতারের জাতীয় এয়ারলাইন্স কাতার এয়ারওয়েজ এবার নেমে গেছে দুই নম্বরে, গত বছর এটি ছিল প্রথম স্থানে। তাদের বহরে রয়েছে ২ শতাধিক উড়োজাহাজ। ১৫০টিরও বেশি রুটে যাত্রী পরিবহন করে এই এয়ারলাইন্সটি। বিশ্বের বৃহত্তম এয়ারওয়েজ কাতার এয়ারওয়েজ গ্রুপে ৪৩ হাজারেরও বেশি কর্মকর্তা কাজ করে আসছে।

এএনএ অল নিপ্পন এয়ারওয়েজ

ওয়ার্ল্ড এয়ারলাইন অ্যাওয়ার্ডসে জাপানের এএনএ অল নিপ্পন এয়ারওয়েজ হয়েছে তৃতীয়। বর্তমানে ৯৭টি রুটে ফ্লাইট পরিচালনা করছে এএনএ। তাদের বহরে রয়েছে ২২১টি উড়োজাহাজ। পরিচ্ছন্নতা, সার্ভিস এবং নিরাপত্তার জন্য গ্রাহকদের কাছে এরা বেশি প্রশংসিত।

এমিরেটস এয়ারলাইন্স

১৯৮৫ সালে যাত্রা শুরু করে দুবাইয়ের এমিরেটস এয়ারলাইন্স। মাত্র দুটি উড়োজাহাজ দিয়ে শুরুটা হলেও বর্তমানে এয়ারলাইন্সটির বহরে রয়েছে ২৫৫টি বিমান। ১৪৩টির বেশি গন্তব্যে যাত্রা পরিচালনা করছে এমিরেটস। তাদের বহরে রয়েছে ২২৫টি উড়োজাহাজ। এগুলোর ৯৯ শতাংশেই রয়েছে ওয়াইফাই সুবিধা।

ইভিএ এয়ারলাইন্স

চীনের ইভিএ এয়ারলাইন্সটি ৬০টিরও বেশি রুটে যাত্রী পরিবহন করে আসছে। ৭০টির বেশি বোয়িং ও এয়ারবাসের তৈরি বিমান রয়েছে তাদের বহরে। বোয়িংয়ে তৈরি ২৪টি ৭৮৭ ড্রিমলাইনার বিমান শিগগিরই যুক্ত করতে যাচ্ছে এয়ারলাইন্সটি। ২০০৪ সালে থেকে দশবার এরও ইন্টারন্যাশনাল ম্যাগাজিনের দৃষ্টিতে বিশ্বের ১০ নিরাপদ এয়ারলাইন্সের স্বীকৃতি অর্জন করে ইভিএ।

ক্যাথে প্যাসিফিক এয়ারওয়েজ

স্কাইট্রাক্সের তালিকায় ২০১৭ সালে পাঁচ নম্বরে থাকা হংকংয়ের ক্যাথে প্যাসিফিক এয়ারওয়েজ এবার নেমে গেছে ছয় নম্বরে। তাদের বহরে রয়েছে প্রায় ২০০টি উড়োজাহাজ। এশিয়া, উত্তর আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়া, ইউরোপ ও আফ্রিকার ২০০টিরও বেশি রুটে যাত্রী পরিবহন করে এয়ারলাইন্সটি। এর জন্ম ১৯৪৬ সালের ২৪ সেপ্টেম্বর।

লুফথানসা এয়ারলাইন্স

১৯৫৫ সাল থেকেএটি অপারেশন পরিচালনা করছে। এই প্রতিষ্ঠানের স্লোগান ‘সে ইয়েস টু দ্য ওয়ার্ল্ড’। তাদের বহরে রয়েছে ২৭৫টিরও বেশি উড়োজাহাজ। ২২০টি রুটে যাত্রী পরিবহন করে এয়ারলাইন্সটি। অভ্যন্তরীণ রুটসহ সারা বিশ্বে মোট ১৯৩টি গন্তব্য স্থলে তাদের বিমান যাতায়াত করে।

হাইনান এয়ারলাইন্স

চীনের হাইনান এয়ারলাইন্স এবার উঠে এসেছে আটে। চীনা সর্ববৃহৎ এই এয়ারলাইন্সের জন্ম ১৯৯৩ সালে। ১৯৯৩ সালের মে মাস থেকে এটি ফ্লাইট পরিচালনা করে আসছে। তাদের বহরে রয়েছে ২০০টিরও বেশি উড়োজাহাজ। ১১০টি রুটে যাত্রী পরিবহন করে এয়ারলাইন্সটি।

গারুদা ইন্দোনেশিয়া

গারুদা ইন্দোনেশিয়া এর জন্ম ১৯৪৯ সালের ২৬ জানুয়ারি। এই বিমান প্রতিষ্ঠানের স্লোগান ‘দ্য এয়ারলাইন অব ইন্দোনেশিয়া’। তাদের বহরে রয়েছে ১৪০টিরও বেশি উড়োজাহাজ। ৯০টি রুটে যাত্রী পরিবহন করে এয়ারলাইন্সটি। এ বছর স্কাইট্রাক্সের ওয়ার্ল্ড’স বেস্ট কেবিন ক্রু ও বেস্ট কেবিন ক্রু ইন ইন্দোনেশিয়া বিভাগেও পুরস্কার পেয়েছে গারুদা ইন্দোনেশিয়া।

থাই এয়ারওয়েজ

থাইল্যান্ডের থাই এয়ারওয়েজ রয়েছে শীর্ষ দশে। এই আকাশ সেবা প্রতিষ্ঠানের জন্ম ১৯৮৮ সালে। এর স্লোগান দুটি— ‘স্মুথ অ্যাজ সিল্ক’ ও ‘আই ফ্লাই থাই’। তাদের বহরে রয়েছে ৮০টিরও বেশি উড়োজাহাজ। বিশ্বের ৯০টিরও বেশি রুটে যাত্রী পরিবহন করে এয়ারলাইন্সটি।